বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৫৫ অপরাহ্ন

ওষুধের কারণে হয় ফুসফুসের রোগ….!!!

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৭ অক্টোবর, ২০১৯
  • ৯২ বার

 আমরা বিভিন্ন কারণে ওষুধ সেবন করি৷ কখনও চিকিত্সকের পরামর্শ অনুযায়ী, কখনও বিনা পরামর্শে৷ এর মধ্যে কিছু কিছু ওষুধ আমাদের ফুসফুসের নানা সমস্যা করে৷ নিম্নে ওষুধজনিত কারণে সমস্যার বিবরণ দেয়া হলো:-

হাঁপানি বেড়ে যাওয়া: হাঁপানি রোগীদের ওষুধ সেবনে বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করা উচিত৷ কারণ নিম্নে উল্লেখ করা ওষুধগুলো হাঁপানি বাড়িয়ে দিতে পারে৷ প্রেসারের ওষুধ (যেমন-মেটোপ্রোলল, এটিনোলল); গ্লুকোমার ওষুধ (যেমন-টিমোলল); ব্যথানাশক ওষুধ (যেমন-এ্যাসপিরিন, ডাইক্লোফেনাক, ন্যাপরোক্সেন, মরফিন); এ্যান্টিবায়োটিকস (যেমন- এমক্সিসিলিন, সেফালোস্পোরিন, টেট্রাসাইক্লিন ইত্যাদি)৷

খুসখুসে বা শুকনো কাশি হওয়া: উচ্চরক্তচাপের ওষুধ ACE Inhibitor, (যেমন-র‌্যামিপ্রিল, লিসিনোপ্রিল, কার্ডোপ্রিল) খেলে খুসখুসে বা শুকনো কাশি হতে পারে৷ তবে ওষুধ বন্ধ করলে কাশি বন্ধ হয়ে যায়৷

ফুসফুসে পানি জমে যাওয়া: এ্যাসপিরিন, ওপিয়াম জাতীয় ওষুধ (যেমন-মরফিন, পেথেডিন), স্যালবিটামল (বেশিমাত্রায়), হাইড্রোক্লোরোথায়াজাইড, মানসিক রোগের ওষুধ (যেমন-ক্লোরপ্রোমাজিন, মিলেরিল) ইত্যাদি ওষুধের কারণে বুকে পানি জমে (Non cardiogenic pulmonary oedema) যায়৷ এর কারণে রোগীর মৃত্যু হতে পারে৷

অ্যালভিওলাইটিস৷ এ রোগে ফুসফুসের অক্সিজেন ও কার্বন ডাই-অক্সাইডের চলাচলে ব্যাঘাত ঘটে৷ ফলে রোগীর শ্বাসকষ্ট ও কাশি হয়৷ ক্যান্সারের ওষুধ (যেমন-বুসালফান, মিটোমাইসিন, ক্লোরামাবিউসিল) এ্যান্টিবায়োটিকস: (যেমন-নাইট্রোফুরানটয়েন, পেনিসিলিন, সালফোনামাইড); হূদরোগের ওষুধ (যেমন-কুইনিডিন, এমিওডেরন); খিঁচুনির ওষুধ (যেমন-ফেনিটয়েন, কারবামাজেপিন) বেশি সময় ধরে সেবন করলে এ রোগ হয়৷

ফুসফুসের রক্তনালিতে রক্ত জমাটবদ্ধ হওয়া (Pulmonary Thromboembolism): জন্মনিয়ন্ত্রণের ওষুধ (ইসট্রোজেন+প্রোজেস্টেরন) বেশি সময় ধরে খেলে ফুসফুসের রক্তনালিতে রক্ত জমাট বাঁধতে পারে বা অন্য জায়গা থেকে জমাটবদ্ধ রক্ত ফুসফুসের রক্তনালিতে আটকা পড়ে, এতে শ্বাসকষ্ট, কাশি সঙ্গে রক্ত, হার্টফেইলুর হয়৷ ফলে রোগীর মৃত্যুও হতে পারে৷

প্লুরাল ও মেডিয়াস্টিনামের ফাইব্রোসিস: মেথিসারজিড, আরগোটামিন জাতীয় ওষুধগুলো খেলে ফুসফুসের আবরণী (Pleura) ও দুই ফুসফুসের মধ্যবর্তী স্থান (Mediastinum) ফাইব্রোসিস হতে পারে৷ ফলে শ্বাসকষ্ট, কাশিসহ নানা সমস্যা হতে পারে৷

ব্রংকিওলাইটিস অবলিটেরানেস: পেনিসিলামাইন, সালফাস্যালাজিন, ট্রিপটোফ্যান এ ওষুধগুলো খেলে ছোট ছোট শ্বাসনালি (Bronchiole) সরু হতে হতে আস্তে আস্তে বন্ধ হয়ে যায়৷ ফলে রোগীর শ্বাসকষ্ট ও শুকনা কাশি হতে পারে৷

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 WeeklyBangladeshNY.Net
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com