রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৬:৫৭ অপরাহ্ন

নিউইয়র্কে ফোবানার সংবাদ সম্মেলনে তুমুল উত্তেজনা : বর্জনের হুমকি সাংবাদিকদের

বাংলাদেশ রিপোর্ট
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৩০ অক্টোবর, ২০১৯
  • ৪২ বার

তুমুল উত্তেজনার মধ্যে ফোবানার এক গ্রুপের সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হলো ২৭ অক্টোবর রোববার নিউইয়র্ক সিটির জ্যাকসন হাইটসে পালকি পার্টি সেন্টারে। ২০২১ সালে ফোবানা (ফেডারেশন অব বাংলাদেশী এসোসিয়েশন্স ইন নর্থ আমেরিকা) কনভেনশনের একপক্ষের হোস্ট হবার নির্বাচনে হেরে যাওয়া গ্রুপের লোকজন ওয়াশিংটন ডিসি থেকে নিউইয়র্কে এসেছিলেন ফোবানার অপর পক্ষের স্টিয়ারিং কমিটির এই সংবাদ সম্মেলনে। এতে স্বাগত বক্তব্য দেন স্টিয়ারিং কমিটির এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি কাজী সাখাওয়াত হোসেন আজম। এরপর লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন সংগঠনের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ হোসেন খান। গোলযোগ দেখা দেয় প্রশ্নোত্তর পর্বে। এ বছরের লেবার ডে উইকেন্ড (৩০ আগস্ট-১ সেপ্টেম্বর) এ ফোবানার এই অংশের কনভেনশন হয় নিউইয়র্ক সিটির ম্যারিয়ট হোটেলে। একইসময়ে অপর অংশের কনভেনশন হয় ৩০ মাইল দূর লং আইল্যান্ডে নাসাউ কলিসিয়ামে।
নাসাউতে ফোবানা কনভেনশনের শেষদিন সন্ধ্যায় ২০২১ এর হোস্ট নির্বাচনে ভোট অনুষ্ঠিত হয়। সেই ভোটে ওয়াশিংটন ডিসিতে ৩৫তম কনভেনশনের জন্যে হোস্ট হিসেবে জয়ী হয়েছে (৩০ ভোটে) ‘আমেরিকা বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ সোসাইটি’। সে অনুযায়ী তারা ডিসিতে ফিরে গিয়ে সাংগঠনিক তৎপরতা শুরু করেছেন। অপরদিকে, ঐ ভোটে পরাজিতরা নানা অভিযোগে পক্ষ ত্যাগ করে ফোবানার ‘মোহাম্মদ হোসেন-কাজী আজম’ গ্রুপের সাথে যোগদানের সিদ্ধান্ত জানাতেই এসেছিলেন এই সংবাদ সম্মেলনে। এজন্যে লিখিত বক্তব্যে বিশেষভাবে উল্লেখ করা হয় যে, ‘আজ আমাদের ফোবানার সাথে বিভ্রান্ত মানসিকতার নেতৃত্বাধীন অন্য একটি ফোবানার সৎ ও সচেতন অংশের সংযুক্তি ফোবানার ইতিহাসে আরো একটি মাইলফলকের সংযোজন। আমরা বিশ্বাস করি এই কাঙ্খিত সংযুক্তি ঐক্যবদ্ধ ফোবানাকে আরো গতিময় করে এর লক্ষ্যে পৌঁছে দিতে গুরুত্বপূর্ণ ভ’মিকা রাখবে।’
প্রশ্নোত্তর পর্বে ওয়াশিংটন ডিসি থেকে আসা শরাফত হোসেন বাবু, আবু সরকার, শেখ সেলিম এবং করিম সালাহউদ্দিনসহ অনেকেই সমস্বরে জানান যে, ভোটের সময়েই তারা প্রতিবাদ করেছেন। এ সময় ঐ ভোট-কক্ষের বাইরে অপেক্ষমান ছিলেন এমন সাংবাদিকরা জানান যে, এই দাবি সত্য নয়। ভোটের সময় কেউই কোন উচ্চবাচ্য বাইরে করেননি, এমনকি ঐ ভোটের ফলাফল বর্জনের তথ্যও আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়নি। সাংবাদিকদের এ কথায় তারা আরো উত্তেজিত হয়ে উঠলে সংবাদ সম্মেলন একযোগে বর্জনের হুমকি দেন সাংবাদিকরা। এ অবস্থায় বিব্রত স্টিয়ারিং কমিটির চেয়ারম্যান, এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি, সাবেক চেয়ারম্যানসহ সকলেই প্রকাশ্যে দু:খ প্রকাশ এবং ক্ষমা প্রার্থনার পর পরিস্থিতি শান্ত হয়। সাংবাদিকরা প্রত্যাবর্তন করেন সংবাদ সম্মেলনে।
সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্নোত্তর পর্ব এবং শুভেচ্ছা জ্ঞাপন পর্বে আরো অংশ নেন স্টিয়ারিং কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান সালু এবং আলী ইমাম, হোস্ট কমিটির চেয়ারপার্সন গিয়াস আহমেদ, ৩৩তম ফোবানা কনভেনশনের সদস্য-সচিব ফিরোজ আহমেদ, যুগ্ম সদস্য-সচিব তাজুল ইমাম, নিশান রহিম, কাজী এলিন, হাবিবুর রহমান সেলিম রেজা, কানাডায় আগামী সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠেয় ৩৪তম ফোবানা কনভেনশনের আহবায়ক তৌফিক এজাজ, শরিফউল্লাহ, ফোবানায় বিলুপ্ত এনএবিসির কর্মকর্তা মঞ্জুর হোসেন, ওয়াশিংটন ডিসি থেকে আসা ফোবানার আবু রুমি, মোহাম্মদ কাজল প্রমুখ। অপরদিকে, আগামী বছর ফোবানার অপর অংশের কনভেনশন হবে টেক্সাসে।
উল্লেখ্য, ফোবানার মধ্য দিয়ে উত্তর আমেরিকায় বাংলাদেশীদের ঐক্যবদ্ধ করার পাশাপাশি নতুন প্রজন্মে বাঙালি সংস্কৃতি বিকাশের প্রত্যয়ে ১৯৮৭ সালে এই কনভেনশনের যাত্রা শুরু হলেও ৮৫% সময়েই বিভক্তির অবতারণা হয়েছে। এখনও লাগাতারভাবে বিভক্তিতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে ফোবানা কনভেনশন। এজন্যে প্রবাসীদের বড় একটি অংশ বিতশ্রদ্ধ হয়ে উঠেছে ফোবানার প্রতি। অথচ কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রে ১২ লাখের অধিক বাংলাদেশীর ৮০% এ দুটি দেশের নাগরিকত্ব গ্রহণ করায় মূলধারার প্রশাসনে জোরালোভাবে সম্পৃক্ত হবার পথ সুগম হয়েছে। কিন্তু অনৈক্য বিরাজিত থাকায় সে প্রত্যাশার কিয়দংশও পূরণ হয়নি। মা-বাবা-অভিভাবকদের বিভক্তি-বিবাদের পরিপ্রেক্ষিতে প্রবাসে জন্মগ্রহণকারি প্রজন্মও ক্রমান্বয়ে বাঙালি সংস্কৃতি থেকে দূরে সরে যাচ্ছে।
এই সংবাদ সম্মেলনের পরই ফোবানার অপর অংশের পক্ষ থেকে নিন্দা জানিয়ে একটি বিবৃতি দেয়া হয়েছে গণমাধ্যমে। ‘লাগোয়ার্ডিয়া ম্যারিয়ট ও নাসাউ কলসিয়ামের ফোবানা নেতৃবৃন্দের যৌথ সাংবাদিক সম্মেলন’ এর ব্যানারে নিউইয়র্কে ২৭ অক্টোবর অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনের তীব্র নিন্দা জানিয়ে এক বিবৃতিতে ফোবানা এক্সিকিউটিভ কমিটির চেয়ারম্যান শাহ হালিম, ভাইস চেয়ারম্যান ও মিডিয়া সাব-কমিটির চেয়ারম্যান জাকারিয়া চৌধুরী এবং এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি আহসান চৌধুরী বলেন, ‘এক শ্রেণীর লোক ফোবানার নাম ভাঙ্গিয়ে ফোবানার সুনাম ক্ষুন্ন করার চেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। এই চক্রের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে মামলা চলমান রয়েছে।’ নেতৃবৃন্দ বলেন, ‘ফোবানার কার্যকরি কমিটির কোন সদস্য বা নাসাউ কলসিয়ামে অনুষ্ঠিত স্বাগতিক কমিটির কোন নেতৃবৃন্দ এই অবৈধ সংবাদ সম্মেলনে অংশগ্রহন করেননি। কিছুসংখ্যক লোক নিজেদের স্বার্থ হাসিলের উদ্দেশ্যে ফোবানার বিরুদ্ধে ক্রমাগত ষড়যন্ত্র করে চলেছে। এই সুবিধাবাদী মহলের ব্যাপারে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে।’
বিবৃতিতে তারা বলেন, ‘নাসাউ কলসিয়ামে অনুষ্ঠিত ৩৩তম ফোবানায় নির্বাচনে হেরে গিয়ে একটি চিহ্নিত মহল ফোবানার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়। এই মহলের কর্মকান্ড ইতিমধ্যেই ফোবানা এক্সিকিউটিভ কমিটির দৃষ্টিগোচর হয়েছে। বর্তমানে এই সুবিধাভোগী ও ফোবানার সুনাম ক্ষুন্নকারী মহলের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহন বিবেচনাধীন রয়েছে।’

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 WeeklyBangladeshNY.Net
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com