সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৬:৪২ অপরাহ্ন

ঢাকাবাসী সঠিক লোককে নির্বাচিত করবেন, আশা কাদেরের

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৯
  • ৫৩ বার

আগের মেয়র ব্যর্থ তা নয়, অধিকতর গ্রহণযোগ্য নেতাকে দেয়া হয়েছে। ঢাকাবাসী সঠিক লোককে নির্বাচিত করবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত ক‌রে‌ছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সোমবার বঙ্গবন্ধু এভিনিউ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ আওয়ামী লীগ কতৃক ‘৩০ ডিসেম্বর গণতন্ত্রের বিজয় দিবস’ উপলক্ষে আ‌য়ো‌জিত সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য ‌তি‌নি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি দেশের নির্বাচিত গণতন্ত্রকে অবরুদ্ধ করে রেখেছিল। বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা সেই গণতন্ত্রকে উদ্ধার করেছে দেশের জনগণের জন্য।

আজ কারা গণতন্ত্রকে কালো দিবস বলে? কারা গণতন্ত্রের হত্যা দিবস বলে? তারাই বলে যারা গণতন্ত্রের পরাজিত শক্তি। যারা গণতন্ত্রের কাছে পরাজিত, তারা আন্দোলনেও পরাজিত, তারা নির্বাচনেও পরাজিত হয়েছে। আর যারা গণতন্ত্রের জন্য মায়া কান্না করে তাদের বলি এদেশের গণতন্ত্র ও বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে ২১ বছরে বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচার করতে দেয়নি। তারা হলো স্বাধীনতার পরাজিত শক্তি। আজ তারা কিভাবে গণতন্ত্রের কথা বলে। বিএনপির মুখে গণতন্ত্রের কথা মানায় না।

‌তি‌নি ব‌লেন, বিএনপি গণতন্ত্রের হত্যার জনক। বাংলাদেশে গণতন্ত্রের হত্যার জনক হচ্ছে বিএনপি। তাদের মুখে গণতন্ত্রের কথা মানায় না। আজ গণতন্ত্রের কালো দিবস না গণতন্ত্রের বিজয় দিবস। আপনারা (বিএনপি) গণতন্ত্রের হত্যার জনক ভুলে গেছেন? মাগুরায় কিভাবে গণতন্ত্রকে হত্যা করেছিলেন ভুলে গেছেন? মাগুরায় প্রকাশ্যে মানুষ হত্যা করে ভোট ছিনিয়ে নিয়েছেন। সেই নিবার্চনে গণতন্ত্রকে হত্যা করে কফিনে বন্দী করে দিয়েছিলো বিএনপি। কয়েকটি ভোট কেন্দ্র ১১০ শতাংশ ভোট পড়েছিলো। আওয়ামী লীগের প্রার্থী শূন্য ভোট পেয়েছিলো। ২০০৭ সালে ১ কোটি ২৩ লাখ ভুয়া ভোটার সৃষ্টি করেছিলেন। তাদের মুখে গণতন্ত্রের কথা শোভা পায় না। আপনাদের (বিএনপির) মুখে এই কথা মানায় না।

আন্দোলনের নামে সহিংসতা করলে দাঁতভাঙা জবাব দেয়া হবে হুশিয়ারি দিয়ে সাধারণ সম্পাদক বলেন, আন্দোলন করুন শান্তিপূর্ণভাবে। আন্দোলনের নামে কোন সংহিসতা করলে সমুচিত জবাব পেয়ে যাবেন। আপনাদের জন্য ঢাকা মহানগরের নেতাকর্মীইরাই যথেষ্ট। ডাক দিলে যেকোন সময় হাজার হাজার নেতাকর্মী চলে আসে। আওয়ামী লীগের সহযোগী ও ভ্রাতৃ প্রতিম সংগঠনের নেতাকর্মীরাও আছেন মাঠে।

আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী দেয়া হয়েছে, তাদের পক্ষ হয়ে সকল নেতাকর্মীরা কাজ করবেন। সবাইকে তো মনোনয়ন দেয়া সম্ভব না। ঢাকা দুই সিটিতে ১৩০৯ জন কাউন্সিল আবেদন করেছে। পাবে ১৭২ জন এবং মেয়র পদে মনোনয়ন নিয়েছেন ১৮ জন। যাদেরকে দেয়া হয়েছে তাদেরকে যাচাই বাছাই করে দেয়া হয়েছে। আমাদের মেয়র প্রার্থী শেখ ফজলে নূর তাপস অধিকতর ক্লিন ইমেজর নেতা। জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্য তাদেরকেই মনোনীত করছে আওয়ামী লীগ। যারা মনোনয়ন পাননি তাদের কথা মনে রাখবে আওয়ামী লীগ। আওয়ামী লীগে ত্যাগ কখনো বৃথা যাবে না। শেখ হাসিনা আছেন, ত্যাগীদের অবশ্যই মূল্যায়ন করা হ‌বে।

গণতন্ত্রের বিজয় দিবস সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানক, আব্দুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব উল আলম হানিফ, আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক আফজাল হোসেন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সবুরসহ অন্যরা।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 WeeklyBangladeshNY.Net
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com