শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:৫৮ পূর্বাহ্ন

বিরক্তিকর চোখের পানি পড়া সমস্যা

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৭ জানুয়ারী, ২০২০
  • ৯২ বার

শীতকালে অনেকে নানা ধরনের রোগে পড়েন। ঠান্ডা থেকে রক্ষা পেতে গরম কাপড় ও ত্বক বাঁচাতে বিভিন্ন ধরনের ক্রিম, লোশন ব্যবহার করেন। চোখ কিন্তু অরক্ষিতই থাকে। দেখা দেয় চোখের বিভিন্ন সমস্যা। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হঠাৎ চোখের পানি পড়া সমস্যা। বিশেষ করে ঠান্ডায় ঘরের বাইরে সমস্যাটি বেশি পরিলক্ষিত হয়। শীতে প্রসাধনী ব্যবহার করার সময় বিশেষ করে আইলাইনার ব্যবহারের ক্ষেত্রে চোখে হঠাৎ পানি পড়া সমস্যা বিরক্তির উদ্রেক সৃষ্টি করে। এর কারণ শীতে বাতাসে আর্দ্রতা। অর্থাৎ আবহাওয়ার শুষ্কতা এ জন্য দায়ী।

চোখ খুব সংবেদনশীল অঙ্গ। ফলে সারাক্ষণ ধুলোবালি ইত্যাদির সঙ্গে এক ধরনের সংঘাতে লিপ্ত থাকে। কোনো কারণে চোখে পানিস্বল্পতা দেখা দিলে চোখ জ্বলে, ব্যথা করে। ফলে চোখ দ্রুত অধিকতর চোখের পানির ঘাটতি মেটাতে চেষ্টা করে। টিয়ার তৈরির ফেক্টরি হলো লেক্রিমাল গ্ল্যাশ্চ, যা ওপরের পাতার গভীরে থাকে। টিয়ার ওখান থেকে পলক ফেলার সময় চোখের উপরিভাগের কোণগুলোয় ছড়িয়ে পড়ে।

চোখের পানি দ্রুত নেত্রনালির মাধ্যমে নাকের ভেতরে বা বাতাসে মিলিয়ে যায়। দ্রুতই আবার পলক ফেলার আবশ্যকতা দেখা দেয়। প্রতিমিনিটে চোখ এভাবে গড়ে ১৫ বার পলক ফেলে চোখ ভিজিয়ে রাখতে চেষ্টা করে। শীতে বাতাসে আর্দ্রতা কম থাকায় টিয়ার আরও দ্রুত বাতাসে মিশে যায়। ফলে চোখ একধরনের সাময়িক শুষ্কতা অনুভব করে। এ শুষ্কতা কাটিয়ে উঠতে চোখ অধিকতর টিয়া তৈরি করতে থাকে। ফলে সাময়িক পানি পড়া সমস্যা দেখা দেয়।

শীতকালে বাতাসে ধূলিকণার পরিমাণ বেশি থাকায় অ্যালার্জি হিসেবেও এটি কাজ করে পানি পড়ার সমস্যা বাড়িয়ে তোলে। শ্বাসকষ্টের মতো অ্যালার্জিও পানি পড়া সমস্যা বাড়ায়। প্রসাধন সামগ্রী বিশেষ করে আইলাইনার ব্যবহারে পানি পড়ার আরেক কারণ অ্যালার্জি। চোখের পাতায় মেয়বোমিয়ান নামক ছোট ছোট গ্রন্থি এক ধরনের তেলজাতীয় রস নিঃসৃত করে, যা চোখের পানি দীর্ঘক্ষণ ধরে রাখতে সাহায্য করে।

চোখের পাপড়ি বা আইলেশের সারির পেছনেই এগুলোর মুখ। আইলাইনার বিশেষ করে ওয়াটার প্রুফ আইলাইনারে গ্রন্থিমুখ বন্ধ হয়ে মেয়বোমিয়ান রস নিঃসরণ বন্ধ হয়ে যায়। এতে টিয়ার ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে শুষ্কতা উস্কে দেয়। আঠালো আইলাইনার পরিষ্কারের সময়ও টিয়ার ক্ষতিগ্রস্ত হয়। ফলে চোখ দিয়ে পানি পড়ে।

শীতে ঠান্ডা বাতাসে চশমা পরা থাকলে উপকার পাবেন। ধুলাবালি, ধোঁয়া ইত্যাদি এড়িয়ে চলুন। অ্যালার্জি সমস্যা থাকলে ব্যবস্থা নিতে হবে। চোখ রগড়ানো বাদ দিতে হবে। সতর্কতার সঙ্গে আইলাইনার মেকআপ রিমুভার দিয়ে পরিষ্কার করে নিতে হবে। হালকা গরম সেঁক দিলে উপকার পাওয়া যায়। আর্টিফিসিয়াল টিয়ার, অ্যান্টি-হিস্টামিন জাতীয় ড্রপ ও ট্যাবলেট ব্যবহার করতে পারেন। প্রয়োজনে চক্ষুরোগ বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নেওয়া যেতে পারে।

লেখক : প্রাক্তন সহযোগী অধ্যাপক, জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান প্রতিষ্ঠান ও হাসপাতাল

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 WeeklyBangladeshNY.Net
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com