বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১১:২৮ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
মানবতাবিরোধী অপরাধ একজনের মৃত্যুদণ্ড, তিনজনের আমৃত্যু কারাদণ্ড তৃতীয়বারের মতো কন্যা সন্তানের মা হলেন ন্যান্সি করোনা মহামারী শেষ হয়নি, বরং পরিবর্তিত হচ্ছে : বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা অন্য ছেলেকে বিয়ে, সাতদিনের মাথায় ‘প্রেমিকের’ হাতে খুন হলেন দিতি পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় চুক্তিতে শীর্ষে বাবর, রিজওয়ান, আফ্রিদি স্কুলের এক ছাত্রীর কাছে ‌‘হিরো সাজতেই’ শিক্ষককে পেটায় জিতু : র‌্যাব অর্থ আত্মসাতের মামলায় নর্থ সাউথের ৪ ট্রাস্টির জামিন নাকচ দক্ষিণ এশিয়ায় সবচেয়ে ব্যয়বহুল শহর ঢাকা অবশেষে পদ্মা সেতুতে সেই মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার আসল কারণ জানা গেল ফাঁস হলো আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ জার্সি

এমসি কলেজে ধর্ষণ : চুল-দাঁড়ি কেটেও শেষ রক্ষা হলো না তারেকের

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৯৭ বার

সিলেট এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে তরুণী ধর্ষণ মামলার এজাহারভূক্ত আসামি তারেকুল ইসলাম তারেক নিজেকে বাঁচাতে চুল, দাঁড়ি কেটে গ্রেফতার এড়াতে আত্মগোপন করেন। তবে শেষ রক্ষা হলো না। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সুনামগঞ্জের দিরাই থেকে তাকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। তারেককে গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে এই মামলার এজাহারভূক্ত সব আসামিকেই গ্রেফতার করা হলো।

র‌্যাব-৯ -এর অতিরিক্ত পুলিশ সামিউল আলমকে আটকের তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তাকে সিলেট নিয়ে আসা হচ্ছে বলেও জানান তিনি। এছাড়া সিলেট এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে তরুণী ধর্ষণের ঘটনায় এজাহারে নাম না থাকলেও ধর্ষণের ঘটনার পর থেকে আইনুদ্দিন ও রাজনের নাম প্রকাশিত হলে জড়িত সন্দেহে আইনুল ও রাজন নামে আরো দুজনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব।

এই মামলার অন্য আসমিদের মধ্যে সোমবার রাত ১১টায় জৈন্তাপুর উপজেলার হরিপুর থেকে এই মামলার আসামি মাহফুজুর রহমানকে গ্রেফতার করে কানাইঘাট থানা পুলিশ। এর আগে রোববার সকালে ছাতক থেকে মামলার প্রধান আসামি সাইফুর রহমান ও মাধবুপর থেকে অর্জুন লস্করকে গ্রেফতার করা হয়।

একই রাতে হবিগঞ্জ সদর থেকে মামলার এজাহারভূক্ত আসামি শাহ মাহবুবুর রহমান রনিকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। ওই রাতেই সিলেটের ফেঞ্চুগঞ্জ থেকে এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে মো: আইনুদ্দিন ও মো: রাজনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব-৯। রোববার রাতে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ থেকে রবিউল ইসলামকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশ।

গ্রেফতার হওয়া সকলেই ছাত্রলীগের নেতাকর্মী বলে জানা গেছে। গ্রেফতার হওয়া অন্য আসামিরাও এ ঘটনায় আইনুদ্দিন ও রাজন জড়িত বলে জানিয়েছে।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার এমসি কলেজে স্বামীর সাথে বেড়াতে এসে সন্ধ্যায় গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করে ছাত্রলীগ নামধারী সন্ত্রাসীরা। পরে রাতে পুলিশ তাদের উদ্ধার করে। এ ঘটনায় ভিকটিমের স্বামী শাহপরাণ থানায় মামলা করেছেন। মামলায় ছাত্রলীগের ছয় নেতাকর্মীসহ অজ্ঞাত আরো তিনজনকে আসামি করা হয়। এ মামলায় ইতোমধ্যে এজাহার নামীয় ছয় আসামিসহ আটজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় তরুণীর স্বামীর দায়ের করা মামলায় আসামিরা হলেন- সাইফুর রহমান (২৮), সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার উমেদনগরের রফিকুল ইসলামের ছেলে তারেকুল ইসলাম তারেক (২৮), হবিগঞ্জ সদরের বাগুনীপাড়ার মো. জাহাঙ্গীর মিয়ার ছেলে শাহ মো. মাহবুবুর রহমান রনি (২৫), জকিগঞ্জের আটগ্রামের কানু লস্করের ছেলে অর্জুন লস্কর (২৫), দিরাই উপজেলার বড়নগদীপুর (জগদল) গ্রামের রবিউল ইসলাম (২৫) ও কানাইঘাটের গাছবাড়ি গ্রামের মাহফুজুর রহমান মাসুম (২৫)। এছাড়া অজ্ঞাতনামা আরও তিনজনকে আসামি করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 WeeklyBangladeshNY.Net
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com