রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ০৫:৪২ অপরাহ্ন

মার্চে ঢাকা আসতে পারেন এরদোগান

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর, ২০২০
  • ১২৪ বার

আগামী বছর জানুয়ারিতে ঢাকায় সম্ভাব্য অনুষ্ঠিতব্য ডি-৮ শীর্ষ সম্মেলন কিংবা মার্চে মুজিববর্ষের সমাপনী অনুষ্ঠানে যোগ দিতে পারেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান। তবে দেশের করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলেই কেবল তিনি ঢাকা আসবেন। আঙ্কারার তরফে এমন ধারণা দেওয়া হয়েছে জানিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলছে, বাংলাদেশ ও তুরস্কের মধ্যকার বিদ্যমান সম্পর্ককে নতুন উচ্চতায় নিতে আগ্রহী প্রেসিডেন্ট এরদোগান। অনেক আগে থেকেই তার সফরের কথাবার্তা চলছে। কিন্তু করোনার কারণে এটি থমকে আছে।

পরিস্থিতির উন্নতি হওয়া মাত্রই এরদোগানের সফরটি হবে। বৈশ্বিক মহামারী পরিস্থিতি বিবেচনায় জানুয়ারিতে ডি-৮ এর শীর্ষ সম্মেলন ভার্চুয়ালি হওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। যদি সেটি হয় তা হলে মার্চে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি সশরীরে যোগ দিতে পারেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন গতকাল বুধবার বলেন, আমরা তাকে (এরদোগান) স্বাগত জানাতে উদগ্রীব হয়ে আছি। তিনি যেভাবে সফরের আগ্রহ দেখিয়েছেন তাতে আমরা খুবই আনন্দিত। ঢাকায় তুরস্কের নতুন মিশন উদ্বোধনে শিগগির দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী আসছেন বলেও জানান তিনি। তুর্কি প্রেসিডেন্টের ব্যক্তিগত আগ্রহে বাংলাদেশকে চতুর্থ দফায় করোনার চিকিৎসাসামগ্রী হস্তান্তর অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন। গতকাল রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় ঢাকাস্থ তুর্কি রাষ্ট্রদূত উসমান তুরান ওই করোনার চিকিৎসাসামগ্রী পররাষ্ট্রমন্ত্রীর হাতে তুলে দেন।

এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী তার সাম্প্রতিক তুরস্ক সফরের প্রসঙ্গ টেনে বলেন, আঙ্কারায় বাংলাদেশ দূতাবাসের নিজস্ব ভবন উদ্বোধনের পর আমি প্রেসিডেন্ট এরদোগানের সঙ্গে সাক্ষাৎ করি। সে সাক্ষাতে তিনি দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক জোরদারে বেশ কিছু প্রস্তাবনা দিয়েছেন। তিনি দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্য দুইশ কোটি ডলারে উন্নীতকরণে দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন। এ ছাড়া উভয় দেশের বাণিজ্যমেলায় পারস্পরিক অংশগ্রহণ নিশ্চিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের তাগিদ দিয়েছেন। বাংলাদেশে তুরস্কের সহযোগিতায় একটি আধুনিক হাসপাতাল নির্মাণে প্রয়োজনীয় জমি বরাদ্দের প্রস্তাবও দিয়েছেন তিনি। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এখন সেসব প্রস্তাব বাস্তবায়নে কাজ করছে।

মন্ত্রণালয়ের তরফে জানানো হয়, তুরস্কের পক্ষ থেকে চতুর্থ দফায় প্রদেয় উপহারসামগ্রীর মধ্যে রয়েছে ১০ হাজার পিস এন-৯৫ মাস্ক, ১০ হাজার পিস গাউন, ১০ হাজার কাভারঅল, ২০টি ভেন্টিলেটর, ২০টি মনিটর এবং ২০টি স্ট্যান্ড সেট।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 WeeklyBangladeshNY.Net
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com