সোমবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:০৬ অপরাহ্ন

স্বপ্নের মেট্রোরেল

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ৩১ আগস্ট, ২০২১
  • ২৩ বার

সরকারের মেগা প্রকল্পগুলোর অন্যতম মেট্রোরেল এখন আর স্বপ্ন নয়, দৃশ্যমান এক বাস্তবতা। রোববার এর পরীক্ষামূলক চলাচল শুরু হয়েছে। রাজধানীর দিয়াবাড়ি থেকে যাত্রা শুরু করে পল্লবী হয়ে ঘুরে আবার ডিপোয় ফিরে গেছে এ ট্রেন। এভাবে এটি ৬ মাস চলবে পরীক্ষামূলকভাবে।

তবে মেট্রোরেল যাত্রী পরিবহণ উপযোগী হতে আরও অন্তত ১৬ মাস সময় লাগবে। সবকিছু ঠিক থাকলে উত্তরা-মতিঝিল রুটের উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত অংশে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রী পরিবহণ শুরু হওয়ার কথা আগামী বছরের ডিসেম্বরে। রাজধানীবাসী অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে এ দিনটির জন্য। মেট্রোরেল এ নগরবাসীর জীবনে স্বাচ্ছন্দ্য ও গতি আনবে বলে আমাদের বিশ্বাস।

২০৩০ সালের মাধ্যে ঢাকায় ছয়টি মেট্রোরেল লাইন নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। সব কয়টি লাইনের কাজ সম্পন্ন হলে রাজধানীর গণপরিবহণ ব্যবস্থায় যুগান্তকারী পরিবর্তন আসবে সন্দেহ নেই। অসহনীয় যানজট থেকেও মুক্ত হবে নগরবাসী। দেশে বর্তমানে বেশ কয়েকটি মেগা প্রকল্পের কাজ চলমান রয়েছে।

এগুলোর প্রতিটির বিষয়ে মানুষের ব্যাপক আগ্রহ থাকলেও মেট্রোরেল প্রকল্পের প্রতি দেশবাসী, বিশেষ করে রাজধানীবাসীর আগ্রহ স্বভাবতই বেশি। এদিকে রয়েছে সবার বিশেষ দৃষ্টি। তাই আমরা মনে করি, রাজধানী ও এর আশপাশ এলাকার গণপরিবহণ সংকটের সমাধানে যেসব প্রকল্পের কাজ চলছে, সেসব প্রকল্প নির্ধারিত সময়ে বাস্তবায়নে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়া উচিত। সরকার অবশ্য সর্বোচ্চ অগ্রাধিকারে থাকা ফাস্টট্র্যাক প্রকল্পের আওতায় রেখেছে একে।

করোনা পরিস্থিতির কারণে মেট্রোরেল প্রকল্পের কাজের গতি কিছুটা শ্লথ হয়ে পড়েছিল। করোনার আগে তিন শিফটে কাজ চললেও পরে একটি শিফট কমিয়ে দেওয়া হয়। আশার কথা, এর পরও প্রকল্পটির প্রথম অংশ নির্ধারিত সময়েই বাস্তবায়িত হবে বলে প্রতীয়মান। অন্য প্রকল্পগুলোও যথাসম্ভব দ্রুত সম্পন্ন করার বিষয়ে গুরুত্ব দিতে হবে।

রাজধানীর সবচেয়ে বড় সমস্যাগুলোর একটি গণপরিবহণ সংকট। এ সমস্যা নিরসনে নানা পদক্ষেপ নেওয়া হলেও বাস্তবতা হলো, দু-একটি ছাড়া রাজধানীর সব রুটের গণপরিবহণে যাত্রীসেবা অত্যন্ত নিুমানের। ফলে বাধ্য হয়েই অনেকে ব্যক্তিগত গাড়ি কিনে থাকেন। রাজধানীর তীব্র যানজটের এটি একটি বড় কারণ। এ বাস্তবতায় রাজধানীবাসী একটি মানসম্মত গণপরিবহণের অপেক্ষায় আছে দীর্ঘদিন ধরে।

মেট্রোরেল চালু হলে গণপরিবহণের অভাব অনেকাংশে দূর হবে সন্দেহ নেই। বাঁচবে নগরবাসীর মূল্যবান সময়ও। তবে মূলত উত্তর-দক্ষিণ পথে চলাচলকারীরাই এর সুফল পাবেন। এ মহানগরীতে উত্তর-দক্ষিণমুখী সড়ক তুলনামূলক বেশি, আবার মেট্রোরেলও উত্তর-দক্ষিণমুখী। এ নগরীতে পূর্ব-পশ্চিমমুখী সড়কের সংখ্যা অনেক কম। এ বাস্তবতায় ঢাকাবাসীর যাতায়াতের দুর্ভোগ পুরোপুরি নিরসনে আমাদের নগর পরিকল্পনাবিদ এবং সরকারের নীতিনির্ধারকদের উচিত এ দিকটিতে বিশেষভাবে দৃষ্টি দেওয়া।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 WeeklyBangladeshNY.Net
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com