মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৩:০২ পূর্বাহ্ন

করোনায় মৃত্যু শূন্য দেশের ৪৫ জেলা

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৭ বার

করোনকালে অনেক দুঃসংবাদের মধ্যে সুসংবাদ হলো দেশের সংক্রমণ পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের ৪৫ জেলায় করোনায় কোনো মৃত্যুর সংবাদ পাওয়া যায়নি। এই সময়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নীলফামারী, লালমনিরহাট ও গাইবান্ধায় কোনো সংক্রমণের বিস্তার ঘটেনি। এ ছাড়া ২৫ জেলায় দৈনিক আক্রান্তের সংখ্যা নেমে এসেছে ১ থেকে ৯ জনের মধ্যে। সংক্রমণের হার মাত্র এক মাসের ব্যবধানে ৩০ শতাংশ থেকে নেমে এসেছে

৬ শতাংশে। এই বিয়ষটিকে ইতিবাচক হিসেবে উল্লেখ করেছেন দেশের জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। তারা বলছেন, দেশের সামগ্রিক কার্যক্রম স্বাভাবিক রাখতে করোনা পরিস্থিতি যেন আবার ঊর্ধ্বমুখী না হয়, সেদিকে বিশেষ নজর দিতে হবে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, মঙ্গলবার দেশের ২৫ জেলায় করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ছিল ১০ জনের কম। এর মধ্যে শেরপুর, মানিকগঞ্জ, বান্দরবান ও মুন্সীগঞ্জে ৭ জন করে; খাগড়াছড়ি, ব্রাক্ষণবাড়িয়া, নেত্রকোনা, নওগাঁ, সিরাজগঞ্জ, পিরোজপুর, ফেনী, পাবনা, বরগুনা ও জামালপুরে ৩ জন করে শনাক্ত হয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নীলফামারী, লালমনিরহাট ও গাইবান্ধায় কোনো ব্যক্তি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়নি। এ ছাড়া রাঙামাটিতে ৬ জন, নাটোরে ৪, রংপুরে ৫, কুড়িগ্রামে ১, বাগেরহাটে ২, ঝিনাইদহে ৫, মেহেরপুরে ১, মাগুরায় ৫, বরিশালে ৬, পটুয়াখালীতে ২, ঠাকুরগাঁও ও ঝালকাঠিতে ১ জন এবং সুনামগঞ্জে ৯ জন।

এ প্রসঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলম আমাদের সময়কে বলেন, দেশে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ এখন নিম্নমুখী। এটি একটি ভালো সংবাদ। চিকিৎসাব্যবস্থার সম্প্রসারণ এবং টিকা কার্যক্রম পরিচালনার ফলে ধীরে ধীরে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের দিকে যাচ্ছে। তবে এতে আনন্দিত না হয়ে এই পরিস্থিতির যেন অবনতি না ঘটে, সেদিকে গুরুত্ব দিতে হবে। বিশেষ করে প্রত্যেককে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সামাজিক দূরত্ব মানার পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে প্রতিপালন করতে হবে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানায়, দেশের গত ২৪ ঘণ্টায় দেশের ৪৫ জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে কোনো রোগীর মৃত্যু হয়নি। এই জেলাগুলো হলো- ফরিদপুর, গাজীপুর, গোপালগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ, মানিকগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদী, রাজবাড়ী, নেত্রকোনা, ময়মনসিংহ, জামালপুর, শেরপুর, বান্দরবান, রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নাটোর, নওগাঁ, পাবনা, সিরাজগঞ্জ, বগুড়া, রংপুর, পঞ্চগড়, নীলফামারী, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, ঠাকুরগাঁও, দিনাজপুর, গাইবান্ধা, বাগেরহাট, চুয়াডাঙ্গা, যশোর, ঝিনাইদহ, খুলনা, মাগুরা, মেহেরপুর, সাতক্ষীরা, পটুয়াখালী, ভোলা, পিরোজপুর, ঝালকাঠি, সুনামগঞ্জ ও হবিগঞ্জ।

আমাদের সময়ের বিভিন্ন জেলা ও ব্যুরো থেকে পাঠানো তথ্যে দেখা গেছে-

রাজশাহীতে মৃত্যু-সংক্রমণ কমেছে : রাজশাহীতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু ও সংক্রমণের হার কমে আসছে। গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে করোনায় আক্রান্ত হয়ে তিনজন এবং উপসর্গ নিয়ে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া গত সোমবার রাতে রাজশাহীর দুটি পিসিআর ল্যাব থেকে পাঠানো করোনা পরীক্ষার ফলে দেখা গেছে- জেলায় ২৮১ জনের নমুনা পরীক্ষা মাত্র ২১ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। সেই অনুযায়ী এদিন রাজশাহীতে করোনা শনাক্তের ছিল হার ৭ দশমিক ৪৭ শতাংশ।

রামেক হাসপাতাল পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী বলেন, ধীরে ধীরে রামেক হাসপাতালে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা কমছে। গত সোমবার হাসপাতালের করোনা ইউনিটে আক্রান্ত হয়ে দুজন এবং উপসর্গ নিয়ে চারজন মারা যায়। এর আগের দিন রবিবার হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মারা যাওয়া ৫ জনের মধ্যে ৩ জনের করোনা পজিটিভ ছিল। তিনি বলেন, রাজশাহীতে করোনা শনাক্তের হারও কমে আসছে। গত রবিবার রাজশাহীতে করোনা শনাক্তের হার ছিল ৮ দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ। গত শনিবার ছিল ৫ দশমিক ৭৮ শতাংশ, গত শুক্রবার ৭ দশমিক ৬১ শতাংশ, গত বৃহস্পতিবার ১০ দশমিক ৮৩ শতাংশ, গত বুধবার ১০ দশমিক ৬৭ শতাংশ ও গত মঙ্গলবার ১০ দশমিক ২৫ শতাংশ এবং গত সোমবার ১৩ দশমিক ২৫ শতাংশ।’

মঙ্গলবার রাজশাহী বিভাগীয় স্বাস্থ্য দপ্তরের সহকারী পরিচালক (রোগ নিয়ন্ত্রণ) ডা. নাজমা আক্তার স্বাক্ষরিত এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে- গত ২৪ ঘণ্টায় রাজশাহী বিভাগজুড়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মাত্র ৪ জন মারা গেছে। মৃতদের মধ্যে ?৩জন বগুড়ার ও ১ জন রাজশাহীর। এর বাইরে বিভাগের অন্য ৬ জেলায় করোনায় প্রাণহানির খবর মেলেনি। গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে আরও ৯৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে বিভাগে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমণ দাঁড়াল ৯৭ হাজার ৩৪০ জন ও মারা গেছেন ১ হাজার ৬৪১ জন।

খুলনায় ২৪ ঘণ্টায় ৪ জনের মৃত্যু : খুলনা বিভাগে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে ১১৬ জনের শরীরে রোগটি শনাক্ত হয়েছে। এ সময়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৮৯ জন। খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. জসিম উদ্দিন হাওলাদার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। আগের দিন সোমবার বিভাগে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছিল এবং ১৩০ জনের মধ্যে করোনা শনাক্ত হয়েছিল। গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের মধ্যে কুষ্টিয়ায় তিন জন ও নড়াইলে একজনের মৃত্যু হয়েছে।

রংপুর বিভাগে মৃত্যু নেই : করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় রংপুর বিভাগে কোনো মৃত্যুর ঘটনা নেই। নতুন করে ৪৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৫ দশমিক ১৫ শতাংশ। আগের ২৪ ঘণ্টাও করোনায় মৃত্যুহীন ছিল রংপুর বিভাগ। স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা যায়, গত সোমবার সকাল ৮টা থেকে গতকাল সকাল ৮টা পর্যন্ত রংপুর বিভাগে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কোনো মৃত্যুর ঘটনা নেই। তবে ২৪ ঘণ্টায় বিভাগে ৮৭৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে করোনা শনাক্ত হয়েছে ৪৫ জনের। এর মধ্যে রংপুর জেলার ৫ জন, পঞ্চগড়ের ১২, কুড়িগ্রামের ১, ঠাকুরগাঁওয়ের ১২ ও দিনাজপুরের ১৫ জন। রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. মোতাহারুল ইসলাম বলেন, করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সবাইকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

বগুড়ায় সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুর্খী : বগুড়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আরও ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। জেলার তিনটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তাদের মৃত্যু হয়। এদের মধ্যে করোনায় ৩ জন আর উপসর্গে ৩ মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার বগুড়ার ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. মোস্তাফিজুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এ ছাড়া একই সময়ে জেলায় নতুন করে ৩৬০ নমুনায় আরও ৩৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তের হার ৯ দশমিক ৩৬ শতাংশ। নতুন আক্রান্ত ৩৩ জনের মধ্যে সদরের ২৪, সোনাতলার ৩, শাজাহানপুরের ৩ এবং বাকি তিনজন গাবতলী, আদমদীঘি ও ধুনটের বাসিন্দা।

ময়মনসিংহে আক্রান্ত ও মৃত্যু বাড়ছে : ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও সাত রোগীর মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে করোনায় তিনজন ও উপসর্গ নিয়ে চারজন চিকিৎসাধীন মৃত্যু হয়েছে। গত কয়েক দিন আগে মৃত্যুর সংখ্যা কমলেও তা পুনরায় বাড়তে শুরু করেছে। মঙ্গলবার সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালের করোনা ইউনিটের মুখপাত্র ডা. মহিউদ্দিন খান মুন। এ ছাড়া একই সময়ে করোনার উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে চারজনের। এর মধ্যে টাঙ্গাইলের দুজন এবং শেরপুর ও নেত্রকোনার একজন করে রয়েছেন। ডা. মুন জানান, করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন ১১ জনসহ বর্তমানে মোট ১০০ রোগী চিকিৎসাধীন। এদের মধ্যে আইসিইউতে চিকিৎসাধীন আছেন ১০ জন। জেলা সিভিল সার্জন ডা. নজরুল ইসলাম বলেন, জেলায় একদিনে ৩৮২টি নমুনা পরীক্ষায় ২৫ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৬ দশমিক ৫৫ শতাংশ।

সিলেটে মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা নিম্নমুখী : সিলেটে গত কয়েক দিন ধরে প্রত্যাশিতভাবে কমেছে করোনা আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা। গেল ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে নতুন করে মৃত্যু হয়েছে ২ জনের। এ নিয়ে সিলেট বিভাগে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৩০২ জনে। একই সময়ে নতুন শনাক্ত হয়েছেন আরও ৫৩ জন। মঙ্গলবার দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সিলেট বিভাগীয় পরিচালক (স্বাস্থ্য) এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। সিলেট বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় ১ হাজার ৫৩টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ৫৩ জনের শরীরে শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে ২২ জন সিলেটের, বাকিদের মধ্যে সুনামগঞ্জের ৯, হবিগঞ্জের ১১ এবং মৌলভীবাজার জেলার ১১ জন।

বরিশালে সংক্রমণ নিম্নমুখী : বরিশাল বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে ও উপসর্গ নিয়ে দুজনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে করোনায় একজন ও উপসর্গ নিয়ে একজন মারা গেছেন। একই সময়ে বিভাগে রোগী শনাক্ত হয়েছেন ২৬ জন। মঙ্গলবার সকালে বিভাগীয় পরিচালক স্বাস্থ্য ডা. বাসুদেব কুমার দাস এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় শেরেবাংলা মেডিক্যাল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালের করোনার আইসোলেশন ওয়ার্ডে উপসর্গ নিয়ে একজন ও করোনা ওয়ার্ডে একজনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন আক্রান্তদের মধ্যে বরিশাল জেলায় ৬ জন, পটুয়াখালীতে ২, ভোলায় ১১, পিরোজপুরে ৩, বরগুনায় ৩ ও ঝালকাঠিতে একজন। শনাক্তের হার ৩ দশমিক ৭২ শতাংশ।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 WeeklyBangladeshNY.Net
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com