মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২, ১২:৩৫ অপরাহ্ন

পাকিস্তান কোনো শিবিরের অংশ হবে না: ইমরান খান

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২২
  • ২৬ বার

পাকিস্তান তার নিরপেক্ষতা বজায় রাখবে এবং কোনো শিবিরের অংশ হবে না। ইসলামাবাদ বেইজিংয়ের দিকে ঝুঁকছে এমন জল্পনা প্রত্যাখ্যান করে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ইমরান খান রবিবার ফেডারেল ক্যাপিটালে সাবেক রাষ্ট্রদূত এবং থিঙ্ক ট্যাঙ্কের প্রতিনিধিদের সাথে একটি আলাপচারিতার সময় বলেন, ”আমার সরকারের কৌশলগত দিকনির্দেশনা খুবই পরিষ্কার। আমরা সকলের সাথে সম্পর্ক বজায় রাখতে চাই এবং [আমরা] কোন শিবিরের অংশ হব না। ” প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সাম্প্রতিক চীন সফর এবং সেই দেশের নেতৃত্বের সাথে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক উভয় দেশের সম্পর্ককে আরও শক্তিশালী করেছে এবং চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোরের চলমান প্রকল্পগুলির কাজের গতিকে ত্বরান্বিত করবে বলে তিনি আশাবাদী । ইমরান বলেছেন যে তার সাম্প্রতিক চীন সফর “দ্রুত পরিবর্তনশীল বৈশ্বিক রাজনৈতিক মানচিত্রের ক্ষেত্রে খুবই প্রাসঙ্গিক।” চীনা নেতৃত্ব কোভিড-১৯ মহামারী কাটিয়ে ওঠার জন্য পাকিস্তানের পদক্ষেপ এবং ইতিবাচক অর্থনৈতিক সূচকগুলির প্রশংসা করেছে। সেকথা স্মরণ করে পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, চীন নির্দিষ্ট প্রকল্পের মাধ্যমে পাকিস্তানকে অর্থনৈতিক সহায়তার বিষয়টি পুনরায় নিশ্চিত করেছে। প্রধানমন্ত্রী প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে বলেন যে , তার সফর দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ককে আরও শক্তিশালী করেছে এবং বেশ কয়েক বছর পর তিনি রাষ্ট্রপতি শি জিনপিংয়ের সাথে বৈঠক করলেন।আফগানিস্তান সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই বিষয়ে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মধ্যে ঐকমত্য রয়েছে।

তিনি বলেন, ইউরোপ এবং আফগানিস্তানের সব প্রতিবেশী রাষ্ট্র সেখানে মানবিক সংকট এড়াতে সম্মত হয়েছে এবং আফগানিস্তানের সম্পদ আনফ্রিজ করার ওপর জোর দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রও পরিস্থিতি বুঝেছে এবং উপলব্ধি করেছে বলে মনে করেন তিনি। একটি প্রশ্নের জবাবে, প্রধানমন্ত্রী বলেছেন যে ১৮ তম সংশোধনীর পরে, সিন্ধু এবং অন্যান্য প্রদেশে গমের দামের পার্থক্যের বিষয়টি নিয়ে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।চীন সরকারের কার্যকারিতার কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যখন সেই দেশে একটি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল তখন গোটা বোর্ড এই আলোচনার মধ্যে ছিল, কিন্তু পাকিস্তানে ফেডারেল এবং প্রাদেশিক সরকারের মধ্যে এই ধরনের সমন্বয়ের অভাব আছে। গত সাড়ে তিন বছর ধরে সরকার অর্থনৈতিক চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করছে একথা উল্লেখ করে ইমরান খান বলেন, সরকারের বিচক্ষণ নীতির কারণে দেশে প্রবৃদ্ধির হার, রেকর্ড কর আদায়, রাজস্ব উৎপাদন এবং রেমিটেন্স প্রত্যক্ষ করা হয়েছে যা ইঙ্গিত দেয় যে দেশের অর্থনীতি সঠিক পথে চলছে। অন্য এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সংসদে আপনার দুই-তৃতীয়াংশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা না থাকলে, আপনি সমাজে বিভিন্ন সংস্কার আনতে আইন প্রণয়ন করতে পারবেন না। প্রধানমন্ত্রী জোর দিয়ে বলেন যে বিশাল সংস্কারের প্রয়োজন রয়েছে। তিনি উদাহরণ টেনে বলেন, চীনে আইনের শাসন রয়েছে। প্রায় ৪00 জন মন্ত্রী পর্যায়ের লোককে দুর্নীতির অভিযোগে জবাবদিহি করা হয়েছে যা প্রেসিডেন্ট শি-র জনপ্রিয়তা বাড়িয়েছে। কোভিড -১৯ এর প্রসঙ্গ টেনে পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, ”বৈশ্বিক মহামারী বিশ্বকে ধ্বংস করেছে।ইতালি, স্পেন এবং যুক্তরাজ্য সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ সম্পূর্ণ লকডাউনের পথ বেছে নিয়েছিল, কিন্তু আমি এর বিরুদ্ধে গিয়েছিলাম যার জন্য রাজনৈতিক বিরোধীদের আমার কঠোর সমালোচনা করেছিলেন।” আত্মপক্ষ সমর্থন করে ইমরান বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, জার্মানি এবং ফ্রান্সের মানুষও লকডাউনের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমেছিল। ভারতে লকডাউনের কারণে বৃদ্ধির হার যেখানে মাইনাসে ছিল, সেখানে পাকিস্তানে আমরা কেবল আমাদের অর্থনীতিই বাঁচায়নি , মানুষের জীবনও বাঁচিয়েছি,” বলেন পাক প্রধানমন্ত্রী। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন যে তিনি বিশকেকে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট পুতিনের সাথে দেখা করেছেন। মুসলমানদের অনুভূতিতে আঘাত করার জন্য বাকস্বাধীনতার নেতিবাচক ব্যবহার সম্পর্কে তার টুইটের পরে, তারা একটি টেলিফোনিক কথোপকথন করেছিলেন। যেখানে রাশিয়ান রাষ্ট্রপতি জানিয়েছিলেন যে রাশিয়ায় কোনও ইসলামফোবিয়া নেই এবং মস্কোর একটি কেন্দ্রীয় মসজিদ পুরোপুরি কার্যকর আছে ।

সূত্র : pakobserver.net

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 WeeklyBangladeshNY.Net
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com