মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৪:৫৬ অপরাহ্ন

যেসব নতুন আইন বদলে দেবে ক্রিকেটকে

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৯ মার্চ, ২০২২
  • ২৬ বার

ক্রিকেটে বোলার বল করার সময় বোলিং প্রান্তে থাকা ব্যাটসম্যান ক্রিজ ছেড়ে বেড়িয়ে গেলে এখন সেটাকে রানআউট ধরা হবে। মেরিলিবোন ক্রিকেট ক্লাব, সংক্ষেপে এমসিসি ক্রিকেটের আইনে কিছু পরিবর্তন এনেছে, যার মধ্যে এটা অন্যতম। এমসিসির মতে, গত দুই দশকে এত তাৎপর্যময় পরিবর্তন আর আনা হয়নি, যা খেলাটাকে বদলে দিতে পারে।

এই ধরনের আউটকে মানকড় বলা হতো, সাবেক ভারতীয় ক্রিকেটার ভিনু মানকড় প্রথমবারের মতো নন স্ট্রাইকে থাকা ব্যাটসম্যানকে এভাবে আউট করেন, তাই এই ধরনের উইকেটকে মানকড় আউট বলা হতো। এখন থেকে এটা রান আউট হিসেবে স্বীকৃত হবে।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের একটি ম্যাচে ভারতের রবিচন্দ্রন আশ্বিন ইংল্যান্ডের জস বাটলারকে এভাবে আউট করার পর সেটা নিয়ে ক্রিকেট বিশ্বে পক্ষে-বিপক্ষে নানা মত দেখা যায়। কেউ কেউ বলেছেন, এটা ক্রিকেটের মূল নীতিকে আঘাত করে। আবার অনেকেই মনে করেন, ব্যাটসম্যান যদি বল ছাড়ার আগে ক্রিজ থেকে বের হয়ে যান, সেটা তাকে বাড়তি সুবিধা দেয়, এটা হওয়া উচিত না।

ভারতের ক্রিকেট সাহিত্যিক ভৈথিস্মরণ নিজের টুইটারে লিখেছেন, ‘আশ্বিনের অবদান এটা যে তিনি আইসিসিকে এটা গ্রহণ করতে খানিকটা হলেও প্রভাবিত করেছেন, এখানে বোলার নয়, যে ব্যাটসম্যান বল ছাড়ার আগে ক্রিজ ছাড়ছেন তিনি অনৈতিকভাবে সুবিধা নিচ্ছেন।’

তবে এখনো অনেকেই এইভাবে ব্যাটসম্যানকে আউট করে দেয়াকে বিতর্কিত বলছেন। মেরিলিবোন ক্রিকেট ক্লাবের ‘ল’ ম্যানেজার ফ্রেজার স্টেউয়ার্ট বলেছেন, ‘এখানে বোলারকে ভিলেন হিসেবে দেখানো হয়, কিন্তু এটা আইনত বৈধ। বোলিং প্রান্তে থাকা ব্যাটসম্যান যদি এগিয়ে যান সেটা অবৈধ।’

বলে লাগানো যাবে না থুতু
অনেক সময় বোলিং দলকে বলে থুতু বা মুখ থেকে লালা নিয়ে বল ঘষতে দেখা যায়, ক্রিকেটে এটা চিরতরে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। মূলত বোলাররা বল উজ্জ্বল রাখতে এই তরিকা ব্যবহার করতেন, এতে করে বলে স্যুইং বেশি পাওয়া যায় বলে মনে করা হয়।

কিন্তু এমসিসির গবেষণা বলছে, এতে বোলাররা সামান্যই লাভবান হতেন, কখনো কখনো মোটেও উপকার হয় না। একইসাথে বলে যে কোনো ধরনের মিষ্টি জাতীয় দ্রব্য, যেমন চকোলেট বা চুইংগাম থেকে নিঃসৃত রস ব্যবহার আগে থেকেই নিষেধ ছিল।

২০০৫ সালের অ্যাশেজে ইংল্যান্ডের বোলাররা মিন্ট জাতীয় দ্রব্য ব্যবহার করে সুবিধা পেয়েছে বলে দাবি ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার ওয়েবসাইটের। এরপর ২০১৬ সালে হোবার্টে একটি টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকার ফ্যাফ ডু প্লেসিও এ কারণে শাস্তির মুখোমুখি হয়েছিলেন।

তবে অনেক ক্রিকেটারই ঘাম ব্যবহার করে থাকেন, সেটা নিয়ে অবশ্য কোনো নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়নি। যদি কেউ বলে লালা ব্যবহার করে অবস্থা পরিবর্তন করতে চান, তবে সেটা বল টেম্পারিংয়ের মতোই অপরাধ বলে গণ্য করা হবে বলে জানাচ্ছে ক্রিকেটের নতুন আইন। এর আগে কোভিড-১৯ থেকে সতর্ক থাকতে বলে লালা ব্যবহার নিষিদ্ধ হয়েছিল।

বল যেখানেই পিচ করুক পেটাতে পারবেন ব্যাটসম্যান
বল পিচের বাইরে পড়লে অনেক সময় ডেড বল ঘোষণা করে দিত আম্পায়ার তবে এখন থেকে সেই বলও পেটাতে পারবেন ব্যাটসম্যান, তবে ব্যাটসম্যানকে পিচের ভেতর থাকতে হবে, তবে ব্যাটসম্যান পিচের বাইরে অবস্থান করলে সেটাকে ‘ডেড বল’ এমসিসি প্রণীত নতুন আইন অনুযায়ী ধরা হবে। একইসাথে যে বল খেলতে পিচ ছাড়তে হবে ব্যাটসম্যানকে, সেটা ‘নো বল’ বলেও গণ্য হবে।

ফিল্ডিংয়ে অনৈতিক পরিবর্তন করলে শাস্তি
এতদিন ফিল্ডিং টিমের কেউ মাঠে অনৈতিকভাবে সরলে সেটাকে ডেড বল ধরা হতো, এতে করে ব্যাটসম্যান যদি ভালো শটও খেলে থাকেন সেটা বাতিল হয়ে যেত। এখন থেকে এই ইচ্ছাকৃত অবৈধ কাজের জন্য পাঁচ রান পেনাল্টি পাবে ব্যাটিং দল।

ওয়াইড বল বিচারে স্বচ্ছতা আনার চেষ্টা
আধুনিক ক্রিকেটে ব্যাটসম্যানরা ক্রিজে অনেক বেশি নড়াচড়া করেন যে কারণে বোলার সঠিক লাইনে বল করলেও অনেক বলকেই ওয়াইড ধরা হয়।

আধুনিক ব্যাটসম্যানরা নিজের মতো জায়গা তৈরি করে নিতে পছন্দ করেন, সঙ্গত কারণেই বোলারকেও বল ফেলার জায়গা মানিয়ে নিতে হয়।

সেক্ষেত্রে এখন থেকে বোলার বল হাতে দৌড়ানো শুরুর আগে ব্যাটসম্যান যেখানে দাঁড়িয়ে ছিলেন সেখান থেকে ধরা হবে ওয়াইড।

এসব আইন ২০২২ সালের পহেলা অক্টোবর থেকে মাঠে কার্যকর হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 WeeklyBangladeshNY.Net
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com