বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৩:২১ অপরাহ্ন

ইউক্রেনে যুদ্ধের ৩৯তম দিন ভারত কি ভুল করছে

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ৩ এপ্রিল, ২০২২
  • ২৫ বার

ইউক্রেনে সামরিক আগ্রাসন চালানোর পর মস্কোর বিরুদ্ধে এখন পর্যন্ত কোনো ব্যবস্থা না নেওয়া, জাতিসংঘে বিপক্ষে ভোট না দেওয়া এবং উল্টো সুসম্পর্ক বজায় রেখে নয়াদিল্লি কি কোনো ভুল করছে, ভবিষ্যতে যার খেসারত দিতে হতে পারে? মার্কিন এক শীর্ষনেতার কথায় সেই আভাসই মিলছে যেন। যুক্তরাষ্ট্রের উপনিরাপত্তাবিষয়ক উপদেষ্টা দিলীপ সিং বলেছেন, রাশিয়ার বিরোধিতা না করে ভুল করছে ভারত। বিপদে পড়লে ভারতকে বাঁচাতে আসবে না রাশিয়া।

এনডিটিভি বলছে, দিলীপ এখানে বিপদ বলতে চীনের সম্ভাব্য আক্রমণের কথা বুঝিয়েছেন। ইউক্রেনের ন্যাটো সামরিক জোটে যোগ দেওয়ার পদক্ষেপকে নিজেদের নিরাপত্তার জন্য হুমকি ঘোষণা দিয়ে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি দেশটিতে হামলা শুরু করে রাশিয়া। আজ এ যুদ্ধ ৩৯তম দিনে গড়িয়েছে। যুদ্ধের কারণে আমেরিকাসহ বিশ্বের কয়েকটি দেশের আর্থিক নিষেধাজ্ঞার মুখের পড়েছে রাশিয়া। রাশিয়ার পাশে দাঁড়িয়েছে পুরানো বন্ধু ভারত। ভারতকে কম দামে তেলসহ নানা পণ্য কেনার আহ্বান জানিয়েছে রাশিয়া। এমন পরিস্থিতিতে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ভারতে যান।

ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সঙ্গে গত শুক্রবার দুপুরে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের পর তিনি সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেন, ‘ভারত আমাদের অবস্থান জানে। আমাদের লুকানোর কিছুই নেই। ইউক্রেন প্রশ্নে ভারত যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তা বাস্তবতার ওপর নির্ভরশীল। সেই সিদ্ধান্ত তারা কোনো কিছুতে প্রভাবিত হয়ে নেয়নি। একতরফাভাবেও নেওয়া হয়নি। এটা প্রশংসার যোগ্য।’ তিনি আরও বলেন, রাশিয়া বহুমেরুকৃত পৃথিবীর পক্ষে।

ইউক্রেন সংকট শুরুর পর এই প্রথম রাশিয়ার কোনো গুরুত্বপূর্ণ নেতার প্রথম ভারত সফরও এটি। চীন হয়ে তিনি ভারতে এসেছেন। জয়শঙ্করের সঙ্গে বৈঠকের পর ল্যাভরভ দেখা করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে। প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিনের এক বার্তা তিনি মোদির কাছে পৌঁছে দিয়েছেন।

রাশিয়া-ইউক্রেনের যুদ্ধে ভারতের অবস্থান নিয়ে আগেই অসন্তোষ প্রকাশ করেছিল আমেরিকা। যুদ্ধের মধ্যেই ভারত সফরে গেছেন ল্যাভরভ। এ পরিস্থিতিতেই আমেরিকা কড়া বার্তাও দিয়েছে। রাশিয়া থেকে ভারত যেন জ্বালানি বা অন্যান্য সামগ্রী আমদানি না করে, তা নিয়েও সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে। গত বুধবারই দুই দিনের ভারত সফরে আসেন দিলীপ সিং। তিনি বেইজিং ও মস্কোর মধ্যে ‘সীমাহীন’ অংশীদারি সম্পর্কের উল্লেখ করে বলেন, ‘রাশিয়ার বিরোধিতা না করে ভুল করছে ভারত। যদি চীন আবার প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা লঙ্ঘন করে, তবে রাশিয়া যে ভারতকে সাহায্য করবেÑ এ আশা যেন না করা হয়।

বিপদে পড়লে ভারতকে বাঁচাতে আসবে না রাশিয়া।’ ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষ বর্ধন শ্রিংলার সঙ্গে বৈঠক করার পরও তিনি জানিয়ে দেন, রাশিয়ার কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সঙ্গে ভারত বা অন্যান্য কোনো দেশ আর্থিক লেনদেনে জড়াক, তা চায় না আমেরিকা।

রাশিয়া ও ভারতের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্কের সাম্প্রতিক উন্নতি হয়েছে। আর এই সম্পর্কের উন্নতিকে আমেরিকা ভালোভাবে নেবে না বলে জানিয়েছেন দিলীপ সিং। এহেন হুমকির পরে তিনি আরও বলেছেন, ‘কোনো দেশ যেন রাশিয়াকে আর্থিকভাবে সমর্থন না করে, সে রকম একটা পরিস্থিতি তৈরি করতে চাই আমরা। যদি কেউ রাশিয়ার পাশে দাঁড়ায়, তা হলে তার ফলাফলও ভুগতে হবে সেই দেশকে।’ যদিও রাশিয়াকে সমর্থনের ফল কী হতে পারে, তা নিয়ে মুখ খুলতে চাননি দিলীপ। ভারতের প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে বেশির ভাগ অস্ত্র কেনা হয় রাশিয়া থেকে। সেই প্রসঙ্গে আমেরিকা জানিয়েছে, তারা অস্ত্র এবং অন্যান্য ক্ষেত্রে ভারতের পাশে দাঁড়াতে রাজি আছে।

সম্প্রতি চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই জানিয়েছিলেন, রাশিয়া ও চীনের সম্পর্ক ‘শর্তহীন’। সেই কথার রেশ টেনেই দিলীপ বলেছেন, ‘চীন যদি ভারত আক্রমণ করে, তা হলে রাশিয়া বাঁচাতে আসবে না।’ বিশ্বে গণতন্ত্র বজায় রাখার উদ্দেশ্যে রাশিয়ার হামলাকে থামানো দরকার, সে কারণেই বিভিন্ন নিষেধাজ্ঞা চাপানো হয়েছে ভøাদিমির পুতিনের দেশের ওপর, এমনটাই জানিয়েছেন দিলীপ।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 WeeklyBangladeshNY.Net
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com