বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:৫০ অপরাহ্ন

পর্যটন আকর্ষণে বাংলাদেশের অগ্রগতি

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ২৯ মে, ২০২২
  • ৩০৩ বার

ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের (ডব্লিউইএফ) ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম ডেভেলপমেন্ট ইনডেক্স-২০২১ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। এবার ১১৭টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১০০তম। ২০১৯ সালের প্রতিবেদনে ১৪০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১২০তম।  এবার করোনার প্রভাবে স্কোরের দিক থেকে বেশির ভাগ দেশের অবস্থা অবনতি হয়েছে। তবে সূচকের তালিকায় এগিয়েছে অনেক দেশ।

পর্যটক আকর্ষণে একটি দেশ কতটা নিরাপদ, অবকাঠামো সুবিধা কেমন, বিমানবন্দর কতটা উন্নত, আবাসন ব্যবস্থার মান কেমন, বন্দর সুবিধা, ঐতিহ্য এবং সংস্কৃতির অবস্থা এরকম ১৪টি সূচকের ভিত্তিতে আগের প্রতিবেদনগুলো তৈরি করা হয়। ২০১৯ সালের প্রতিবেদনে ১৪০টি দেশের তথ্য থাকলেও এবার ১১৭টি দেশের তথ্য সন্নিবেশিত করা হয়েছে।

দক্ষিণ এশিয়ার ৮ দেশের মধ্যে পাঁচটির তথ্য-উপাত্ত স্থান পেয়েছে এই প্রতিবেদন। এই পাঁচটি দেশের মধ্যে বাংলাদেশ আছে চতুর্থ স্থানে। এ অঞ্চলের দেশগুলোর মধ্যে পর্যটনে সবচেয়ে এগিয়ে ভারত, রয়েছে ৫৪তম অবস্থানে। যদিও দেশটি করোনার প্রভাবে পর্যটন খাতে বড় ক্ষতি হয়েছে। এ ছাড়া শ্রীলঙ্কা ৭৪তম, পাকিস্তান ৮৩তম ও নেপাল ১০৩তম অবস্থানে রয়েছে।

 

প্রতিবেদনে ভ্রমণ ও পর্যটন উন্নয়ন সূচকের শীর্ষে থাকা দেশগুলোর বেশির ভাগই উচ্চআয়ের। শীর্ষ স্থানে রয়েছে জাপান। দ্বিতীয় অবস্থানে আছে যুক্তরাষ্ট্র, এরপর স্পেন। শীর্ষ দশে এর পরের অবস্থানগুলোতে রয়েছে যথাক্রমে-ফ্রান্স, জার্মানি, সুইজারল্যান্ড, অস্টে্লিরয়া, যুক্তরাজ্য, সিঙ্গাপুর ও ইতালি। তালিকায় একেবারে তলানিতে রয়েছে আফ্রিকার দেশ চাদ, ১১৭তম তম অবস্থানে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনার প্রভাবে বিশ্বব্যাপী লকডাউন, ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা ও অর্থনৈতিক সংকটে শুধু ২০২০ সালে পর্যটন খাতে ক্ষতির আর্থিক পরিমাণ প্রায় সাড়ে ৪ ট্রিলিয়ন ডলার। এই সময়ে পর্যটন খাতে বিশ্বব্যাপী কর্মসংস্থান হারিয়েছে ৬ কোটি ২০ লাখের বেশি মানুষ।

করোনার প্রকোপ কমতে শুরু করায় পর্যটনের পরিমাণ বাড়ছে, কিন্তু এর গতি ধীর। চলতি বছর অর্থাৎ ২০২২ সালের জানুয়ারি মাসে বিশ্বে ১ কোটি ৮০ লাখ মানুষ ভ্রমণ করেছেন, যা গত বছরের তুলনায় বেশি। কিন্তু করোনার পূর্ববর্তী সময়ের তুলনায় এই সংখ্যা ৬৭ শতাংশ কম। বিশ্বব্যাপী পর্যটন আগের অবস্থায় যেতে ২০২৪ সাল পর্যন্ত লেগে যেতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

করোনার সংক্রমণ কমে আসায় পর্যটন খাতে নতুন সম্ভাবনা রয়েছে। তবে ইউক্রেনের যুদ্ধের মতো নতুন কারণগুলোও এই খাত ঘুরে দাঁড়াতে নতুন জটিলতা তৈরি করছে।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 WeeklyBangladeshNY.Net
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com