রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ০৬:০৭ অপরাহ্ন

ফোবানার বিলুপ্ত কমিটির চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান, এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি ও জয়েন্ট সেক্রেটারি ফোবানা থেকে বহিষ্কার

বাংলাদেশ ডেস্ক :
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ২১ জুন, ২০২২
  • ২০ বার

ফেডারেশন অব বাংলাদেশী এসোসিয়েশন ইন নর্থ আমেরিকা ফোবানার বিলুপ্ত কমিটির চেয়ারম্যান  রেহান রেজা ও এক্সেকিউটিভ সেক্রেটারি মাসুদ রব চৌধুরীকে  গুরুতর সাংগঠনিক অপকর্মের জন্য আজীবনের জন্য ফোবানা থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। সাথে সাথে ভাইস চেয়ারম্যান এম. মাওলা দিলু ও জয়েন্ট সেক্রেটারি  নাহিদুল খান সাহেলকে নানা অনৈতিক ও অসাংগঠনিক কর্মকান্ডের জন্য ফোবানা থেকে ৫ বৎসরের জন্য বহিস্কার করা হয়েছে। গত পহেলা জুন ফোবানার সর্বোচ্চ নীতি নির্ধারনী ফোরাম এজিএম এর দুই তৃতীয়াংশ সদস্যদের মতামতের ভিত্তিতে এবং গত ১৩ জুন সোমবার এক্সিকিউটিভ কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত চুড়ান্ত করা হয়।

একই সভায় ২০২২ সালের সেপ্টেম্বর মাসে শীকাগোতে অনুষ্ঠিতব্য ৩৬তম ফোবানা সম্মেলন বাতিল ঘোষণা করে লস এঞ্জেলেসে সম্মেলনটি  আয়োজন করবার সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়।

বহিস্কৃত চেয়ারম্যান রেহান রেজার বিরুদ্ধে আনিত ও প্রমানিত অভিযোগগুলোর মধ্যে রয়েছে ২০১৯ সালে সকল চেয়ারম্যানদের মতামত ও অনুরোধ উপেক্ষা করে রেহান রেজা নির্বাচনে অংশগ্রহন করে পরাজিত হওয়ার পর থেকে বিগত বছরগুলোতে ফোবানার ভিতর বিভক্তির সৃষ্টি, স্বাধীনতা বিরোধীদের সাথে জোট বেঁধে গত বছর মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ন জয়ন্তীর সম্মেলন বানচালের ষড়যন্ত্র,সিনিয়র নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে বিষোধাগার, ফোবানার কার্যক্রম পরিচলানায় বাধা প্রদান, ফোবানাকে দুইভাগ করার প্রকাশ্য ঘোষনা, চেয়ারম্যান সিলেক্ট হবার পর থেকে ফোবানার ভিতর নোংরা গ্রুপিং সৃষ্টি করে ফোবানার পুরনো পরীক্ষিত নেতাদেরকে ফোবানা থেকে বাদ দেয়ার ষড়যন্ত্র, অন্যায় ও অবৈধভাবে ফোবানা থেকে সদস্যদেরকে বাদ দেয়া, উত্তর আমেরিকার জনপ্রিয় সংগঠগুলোকে বাদ দেয়ার নীল নকশা, ফোবানাকে কর্পোরেট সংগঠনে পরিচালনা করার অপচেষ্টা, চেয়ারম্যানের শপথ ভঙ্গ করে পরবর্তী নির্বাচনে এক চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে প্রচারনা, চেয়ারম্যান হিসাবে সংগঠনকে নেতৃত্ব দিতে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে অসাধু এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারির প্রেসক্রিপশনে সংগঠন পরিচালনা করা।  সাম্প্রতিক সময়ে ঢাকা গিয়ে ফোবানার নাম ব্যবহার করে বেপোরোয়া চাঁদাবাজী, আদম ব্যাবসা সহ বিভিন্ন অবৈধ ও অনৈতিক কর্মকান্ডের সাথে যুক্ত হওয়া, ফোবানার ভিতরে বাইরে কোন্দলন সৃষ্টি করে ফোবানাতে ভাঙ্গন সৃষ্টিতে মদদ দেয়া সহ অসংখ্য অভিযোগে রেহান রেজাকে আজীবনের জন্য ফোবানা থেকে আজীবনের বহিস্কার করা হয়।  এছাড়াও ২০১৯ সালে, নিজের কোন সংগঠন না থাকায় অন্য একটি সংগঠনকে নিয়ে এসে আরেক ষ্টেটের লোক দিয়ে জাল ভোট প্রদান করে ধরা পড়েন। ২০১১ সালে নিউজার্সী সম্মেলনে কর্তৃপক্ষের বিনা অনুমুতিতে ফোবানার কর্মকর্তাদেরকে না জানিয়ে রেহান রেজা অবৈধ ভাবে ফোবানার প্যাড জাল করে তৎকালীন পূর্তমন্ত্রী আবদুল মান্নানকে প্রধান অতিথি হিসাবে আমন্ত্রন জানিয়ে পরবর্তিতে আয়োজক কমিটির কাছে ধরা পড়লে কমিটির সদস্যদের বিরোধীতার মুখে মন্ত্রীকে অন্য ফোবানায় অতিথি হিসাবে প্রেরন করা ও রাজউকের প্লটের জন্য তদবীর করেন।

বিলুপ্ত করা এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি মাসুদ রব চৌধুরীর বিরুদ্ধে আনীত ও প্রমানিত অভিযোগসমুহের মধ্যে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আদালতে  সাজাভুক্ত আসামী হওয়া সত্বেও তিনি এই তথ্য গোপন করে ফোবানার ট্রেজারার ও সেক্রেটারি পদে নির্বাচন করা, ট্রেজারার নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে ৩৬ বছরের এই পুরনো সংগঠনটিকে বিভক্ত করার নোংরা ষড়যন্ত্রের নেতৃত্বে লীপ্ত হওয়া, বিগত তিন বছর ধারাবাহিক ভাবে ফোবানার নির্বাহী কমিটির পাশাপাশি ফোবানার “লাইক মাইন্ডেড গ্রুপ” নামে একটি গ্রুপ তৈরি করে অবৈধ ও অসাংগঠনিক ভাবে ফোবানার প্যারালাল কার্যক্রম পরিচালনা করা, ফোবানার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান সহ অধিকাংশ সাবেক চেয়ারম্যান ও সদস্যদেরকে বিভিন্ন সময়ে অপমান অপদস্ত করা, সেক্রেটারি থাকা অবস্থায় চেয়ারম্যানের রুলিং অমান্য করে নিজের খেয়ালখুশি মত ফোবানার কার্যক্রম পরিচালনা, চেয়ারম্যানের অনুমুতি ব্যতিত ফোবানার ওয়েবসাইট ও সোস্যাল মিডিয়া একাউন্টের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে ফোবানার সমস্ত ক্রেডেন্সিয়াল হাইজ্যাক করা, অপছন্দের সংগঠন ও নেতৃবৃন্দকে বাদ দেয়া ও ইমেইলে ব্লক করা, ফোবানার নির্বাহী কমিটির মিটিংয়ের তথ্য ফাঁস করা যা অসাংগঠনিক ও সংবিধান পরিপন্থী, ভুঁয়া সংগঠন বানিয়ে ফোবানায় অর্ন্তভুক্তি করে দল ভারী করে ক্ষমতা কুক্ষিগত করার নীল নকশা প্রনয়ন করা , নিজের কোন সংগঠন না থাকায় নিজের স্ত্রী ও শালার নামে ভুঁয়া সংগঠন বানিয়ে ফোবানায় অর্ন্তভুক্ত করা, সাম্প্রতিক সময়ে নির্বাহী কমিটির সভায় সম্পূর্ণ অবৈধ ভাবে চেয়ারম্যানের রুলিং না থাকা সত্বেও তিনজন সিনিয়র চেয়ারম্যানকে ’বি কোয়াইট’ বলে ধমক দিয়ে মাইক বন্ধ করে মিটিং থেকে বের করে দেয়া, পরবর্তী পর্য্যায়ে চেয়ারম্যানের অনুরোধ সত্বেও তিনজন সিনিয়র চেয়ারম্যানের জুম মিটিংয়ে মাইক সংযোগ না দেয়া, ২০২১ সালের ফোবানা সম্মেলনে স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তী ও মুজিববর্ষ পালনে বাধা প্রদান, স্পন্সর বাতিল, অবৈধ ও অসাংগঠনিক ভাবে ফোবানা সম্মেলন বাধাগ্রস্থ করা, সম্মেলন বাতিল করার হুমকী সহ সম্মেলনকে আর্থীক ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ করা, ২০২১ সালের হোষ্ট কমিটির কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে একের পর এক ষড়যন্ত্র সহ নানা অভিযোগে ফেডারেল সাজাভুক্ত এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি মাসুদ রব চৌধুরীকে আজীবনের জন্য বহিস্কার করা হয়।

বিলুপ্ত ভাইস চেয়ারম্যান এম মওলা দিলুর  বিরুদ্ধে আনিত ও প্রমানিত অভিযোগগুলোর মধ্যে রয়েছে রাষ্ট্রীয় আদালতে সাজাভুক্ত কিছু ব্যক্তিদের সহ নানা অপশক্তির  ইশারায় ফোবানার সিনিয়র নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে বিষোধাগার, নির্বাহী কমিটির বিভিন্ন সভায় সিনিয়র নেতৃবৃন্দের নাম ধরে কটুক্তি করা,ক্ষমতার অপব্যবহার করে সরাসরি ভোটে নির্বাচিত সাব কমিটির কর্মকর্তাদেরকে অসাংগঠনিক পন্থায় এককভাবে দায়িত্ব থেকে অব্যহতি জানিয়ে সাধারন সদস্যদের কাছে ইমেইল প্রদান সহ নানা অপপ্রচারের অভিযোগে ভাইস চেয়ারম্যান দিলু মাওলাকে পাঁচ বছরের জন্য বহিস্কার করা হয়।

বিলুপ্ত জয়েন্ট এক্সেকিউটিভ সেক্রেটারি নাহিদুল খান সাহেলের বিরুদ্ধে আনীত ও প্রমানিত অভিযোগসমুহের মধ্যে রয়েছে ২০২১ সালের ফোবানা সম্মেলনে স্বাধীনতার সূবর্ণজয়ন্তী ও মুজিববর্ষ পালনে বাধা প্রদান, কোন সংগঠন না থাকা সত্বেও অর্থের বিনিময়ে ২০১৮ সালে ফোবানা সম্মেলনের সদস্য সচিব হয়ে আজ অবদি ফোবানায় সংযুক্ত থাকা ও মেম্বারশীপ কমিটির চেয়ারম্যান পদ নিয়ে বৈধ সংগঠনগুলোকে ফোবানা থেকে বাদ দেওয়ার হুমকি, ২০২৩ সালে অনুষ্ঠিতব্য ফোবানা সম্মেলন বাতিলের হুমকি, সম্প্রতিক সময়ে নির্বাহী কমিটির সভা পরিচালনা করতে গিয়ে সাবেক দুইজন চেয়ারম্যানের মাইক বন্ধ করে ভার্চুয়াল  সভা থেকে বের করে দেয়া, ফোবানা ইমেইল গ্রুপ ও মেসেঞ্জার গ্ৰুপে সিনিয়র নেতৃবৃন্দকে কটাক্ষ করে বিভিন্ন উস্কানিমুলক মেসেজ দেওয়া, ফোবানাকে কর্পোরেট সংগঠনে পরিনত করার চেষ্টায় লীপ্ত হওয়া সহ অসংখ্য অভিযোগে বিলুপ্ত জয়েন্ট এক্সেকিউটিভে সেক্রেটারি নাহিদুল খান সাহেলকে পাঁচ বছরের জন্য বহিস্কার করা হয়।

এছাড়া ২০২২ সালে শীকাগোতে অনুষ্ঠিতব্য ৩৬তম ফোবানা সম্মেলনের স্বাগতিক কমিটি ফোবানার সমস্ত রেকর্ড ভঙ্গ করে মাত্র ৬৫০ জনের ধারনক্ষমতা সম্পন্ন অডিটরিয়ামে ফোবানা সম্মেলন আয়োজনের জন্য প্রায় আড়াই লক্ষ ডলারের বাজেট ধরে বেপোরোয়া চাঁদাবাজি, আদম ব্যবসা ও মানুষের সাথে প্রতারনা করা সহ নানা অভিযোগে শীকাগো সম্মেলন বাতিল করে লস এঞ্জেলেস এর ছয়টি জনপ্রিয় সংগঠনকে যৌথভাবে ৩৬তম ফোবানা সম্মেলন আয়োজনের দায়িত্ব প্রদান করা হয়। আগামী  সেপ্টেম্বর ২, ৩ ও ৪ তারিখে (লেবার ডে উইকেন্ড) লস এঞ্জেলেসের হোটেল মেরিয়ট বারব্যাংকে অনুষ্ঠিত হবে। সম্মেলন আয়োজক কমিটির সভাপতি জাহিদ হোসেন পিন্টু ২১৩-৮০৪-০৫২৩, কনভেনার আবুল ইব্রাহিম ২১৩-৯৪৮-৭৯০৮, সদস্য সচিব সৈয়দ এম হোসেন বাবু ৩২৩-৬৩৫-৮৯৮৩ও কোষাধ্যক্ষ দেওয়ান জমির পলাশ ৯১৩-৪৮৮-৬০২১।

গণমাধ্যম সহ সকলের কাছে ফোবানা নির্বাহী কমিটির পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো যাচ্ছে যে, ফোবানা নিয়ে বিভ্রান্তির কোন অবকাশ নেই। আইনগত ও সাংগঠনিক ভাবে জনাব আতিকুর রহমান ও ড. রফিক খানের নেতৃত্বাধীন ফোবানাই হচ্ছে ফোবানার মুল সংগঠন। ফোবানা সংক্রান্ত যেকোন তথ্যের জন্য চেয়ারম্যান আতিকুর রহমান ৯৫৪-৮১৮-২৯৭০ ও এক্সিকিউটিভ সেক্রেটারি ড. রফিক খান ২৮১-৪৬০-৯১০১ অথবা fobana.info এ যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ জানানো যাচ্ছে। বিজ্ঞপ্তি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 WeeklyBangladeshNY.Net
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com