বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল ২০২১, ০২:৩২ অপরাহ্ন

নির্ভয়ে কেন্দ্রে যাবেন, জীবন দিয়ে হলেও আপনাদের সুরক্ষা দেব ইনশাআল্লাহ : ইশরাক

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৩০ জানুয়ারী, ২০২০
  • ৭৯ বার

নগর বাসীর উদ্দেশ্যে ইশরাক হোসেন বলেন, ভোটের আর মাত্র তিন দিন বাকি। মা-বাবা, ভাই-বোন যারা ভোটার আছেন তাদের সকলের প্রতি আবেদন, সবাই নির্ভয়ে আগামী পহেলা ফেব্রুয়ারী ভোট কেন্দ্রে যাবেন। আমাদের দল আপনাদের পাশে থেকে সব ধরনের সহযোগিতা দিয়ে যাবে। আমাদের জীবন দিয়ে হলেও আমরা আপনাদের সুরক্ষা দেব ইনশাআল্লাহ।

আজ বুধবার রাজধানীর বংশালের যুবদল অফিসের সামনে থেকে গণসংযোগ ও প্রচারণা শুরুর আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন,ভাইস চেয়ারম্যান নিতাই রায় চৌধুরী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, গণফোরামের কার্যকারি সভাপতি এডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপি সাধারণ সম্পাদক কাজি আবুল বাশার, এডভোকেট নাদিম মোস্তফা, ডেমোক্রেটিক লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট সাইফ উদ্দিন আহমেদ, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, মোরতাজুল করিম বাদরু, এসএম জিলানী, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহমুদ জুয়েলসহ বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনের কয়েক হাজার নেতাকর্মী।

ইশরাক বলেন, আপনারা কোন ভয় পাবেন না। কোন বাঁধা বিপত্তি মানবেন না। এই দেশের মালিক জনগণ, রাষ্ট্রের মালিক জনগণ। মুক্তিযুদ্ধের মূলমন্ত্র ছিল, জনগন রাষ্ট্র পরিচালানা করবে, জনগণ দেশ পরিচালনা করবে। সেই অধিকার আমাদের থেকে ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে। অধিকার ফিরিয়ে আনতে সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন বলেছেন, ধানের শীষের পক্ষে গণজোয়ার রাজধানীর সীমানা পেরিয়ে সারাদেশে ছড়িয়ে পড়েছে। এ জোয়ার ঠেকানোর সাধ্য কারো নেই। কোনো ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে ধানের শীষের বিজয় কেউ আটকে রাখতে পারবে না।

বিএনপির এই মেয়র প্রার্থী বলেন, নির্বাচনের তফশিল ঘোষণার পর থেকে নানা চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে আমরা আজকে এ পর্যন্ত এসেছি। ধানের শীষে ভোট দেয়ার পক্ষে, গণতন্ত্রের মুক্তির পক্ষে, মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। এটি শুধু ঢাকা নয়- এই গণজোয়ারের ছায়া আমরা পুরো দেশেই দেখতে পাচ্ছি। গত ১৩ বছর এদেশকে বৃহৎ এক কারাগারে বন্দী করে রাখা হয়েছে। তাই মানুষ এখন শুধু মুক্তির অপেক্ষায়

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..

© All rights reserved © 2019 WeeklyBangladeshNY.Net
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com